Focus Writing এ দক্ষ হওয়ার জন্য আপনাকে যা করতে হবে

Focus Writing এ দক্ষ হওয়ার জন্য আপনাকে যা করতে হবে
Content Protection by DMCA.com

Focus Writing এ দক্ষ হওয়ার জন্য আপনাকে যা করতে হবে । Focus Writing নিয়ে কিছু কথা বলব আজকের এই পোষ্টে । বাংলাদেশ ব্যাংকসহ বিভিন্ন ব্যাংকের পরীক্ষায় লিখিত অংশে Essay writing or ফোকাস রাইটিং তথা Focus Writing নামে একটি অংশ থাকে তাছাড়াও বিসিএস মানেই ফুল অফ ফোকাস রাইটিং , অনেকেই এই অংশটিকে কিছুটা অবহেলা করেন বা বেশি খুব গুরুত্ত্ব দিতে চান না।

ইংরেজিতে রচনা, অনুচ্ছেদ, পত্র, প্রতিবেদন ইত্যাদি লিখার প্রচলন বহু আগে থেকেই আছে। যা আমরা বিভিন্ন একাডেমিক পরীক্ষা, প্রতিযোগিতা মূলত পরীক্ষা সহ বিভিন্ন অফিসে কাজ করতে ও লিখার মাধ্যমে যোগাযোগ করার জন্য সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে মারাত্নকভাবে প্রয়োজন হয়ে পড়ে।

কিন্তু প্রশ্ন হল পারি কি তা আমরা? হুম পারি হয়ত কিছুটা আর যা পারি তার অনেকটাই মুখাস্ত বিদ্যা। তাহলে এই পারা দিয়ে কি BCS সহ Bank writing এ ভাল করা যাবে? যাবে না তো! কারন এগুলোতে ভাল করতে হলে প্রথমে নিজের দক্ষতা বাড়াতে হবে। এখন কিভাবে সে দক্ষতা বাড়াবেন?

১. নিজের সাথে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হতে হবে যে আমি কোন উপায়ে writing ভাল করব।
২. মুখাস্থ বিদ্যা সবার আগে বাদ দিতে হবে।
৩. বাংলায় রচনা, অনুচ্ছেদ, পত্র, প্রতিবেদন লিখতে পারার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
৪. Free- hand writing করার দক্ষতা থাকতে হবে।
৫. Formal or Informal writing এর জন্য কিছু নিয়ম আছে সে নিয়মগুলো সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে।

এই ৫ টি কাজ যদি করতে পারি তবে writing ভাল করার সম্ভবনা থাকবে।

নিজের সাথে কেন প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হতে হবেঃ হতে হবে কারন আমরা একটু অলস প্রকৃতির প্রানী আর এই অলসতাকে ত্যাগ করার জন্য ও নিজের লক্ষ্যে স্থীর থাকার জন্য আপনাকে আপনার সাথে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হতে হবে যে, যত সমস্যাই আসুক না কেন আমি আমার লক্ষ্য থেকে এক বিন্দুও নড়ব না।

মুখাস্থ বিদ্যা কেন ত্যাগ করতে হবেঃ কারন এটি আপনার সৃজনশীলতাকে নষ্ট করে দেয়। আপনি যে নিজে থেকে কিছু লিখবেন সেই ইচ্ছাটাকে এটি হত্যা করে ফেলে যা সত্যিই অনেক সমস্যার কারন সবার জন্য। তাই এসব মুখাস্থ নির্ভর পড়াশোনা থেকে যতদিন পর্যন্ত আপনি বাহির হয়ে আসতে না পারবেন ততদিন পর্যন্ত আপনার সমস্যা থেকেই থাকবে।

বাংলায় কোন কিছু নিজে নিজে লিখতে পারার মত অভিজ্ঞতা কেন লাগবেঃ লাগবে কারন এটি আপনাকে আইডিয়া জেনারেট করতে সহায়তা করবে। আপনার যদি কোন বিষয় সম্পর্কে কোন ধারনাই না থাকে তবে লিখবেন কিভাবে? অনেক লোক আছে দেখবেন কথা বলতে গেলে বা কোন speech দিতে গেলে একটু পরে সে আটকে যায়, যা বলে যে কি বলবে তা সে আর খোঁজে পাচ্ছে না।

এর কারনটা কী? এর কারন হচ্ছে তিনি ঐ মূর্হুতে আইডিয়া জেনারেট করতে পারতেছেন না যে উনার এখন কী বলা উচিত। ঠিক একেই ভাবে আপনি কোন কিছু লিখতে গেলেও আপনাকে একই সমস্যায় পড়তে হয়। তাই যদি আপনি যেকোন বিষয়ে বাংলায় লিখতে পারেন বা আইডিয়া জেনারেট করতে পারেন তবে ইংরেজিতে কোন কিছু লিখতে আপনার আর কোন সমস্যাই থাকবে না কারন আপনি যাই লিখবেন তার ধারনা প্রথমে আপনাকে বাংলা থেকেই নিতে হবে কারন আমরা বাংলায় অভ্যস্ত।

Freehand writing- এটা আবার কী জিনিসঃ এটি খুব সহজ একটি বিষয় তা এর নামটি শুনলেই অনুধাবন করার কথা। Freehand writing এর মূল যে বিষয়টি তা হল- কোন নিয়মকানুন, বানান, ব্যাকরন, writing এর format, কোন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে লিখতে হবে- এরুপ কোন ধরনের শর্ত না দিয়ে নিজের মনে যা আসে তা লিখাকেই বুঝায়।

এখানে আপনি কত word লিখবেন, formally লিখবেন নাকী informally লিখবেন তারও কোন নির্দিষ্ট কোন নিয়ম থাকবে না। তবে এই ক্ষেত্রে শিক্ষক যদি কোন নিয়ম মানতে বলে তবে তা মেনেই লিখার নামেই free-hand writing. তবে আমি এ ক্ষেত্রে বলব যতটুকু সম্ভব ব্যকরনের নিয়ম মেনে, বানান ঠিক রেখে formal way তে freehand writing অনুশীলন করতে , কারন যদি আপনি ভুল way তে লিখতে থাকেন তবে আপনি ভুলে অভ্যস্ত হয়ে পড়বেন যা পরবর্তীতে ত্যাগ করাটা অনেক সময় সম্ভব হয়ে উঠে না।

তাহলে এ ক্ষেত্রে যে বিষয়টি দাড়াল তা হল- আপনাকে ইংরেজিতে নিজে নিজে বাক্য তৈরি করার ablility তৈরি করতে হবে যার জন্য আপনাকে grammar & vocabulary শিখতে হবে। তার সাথে আইডিয়া জেনারেট করার মতও ability থাকতে হবে। আপনারা freehand writing এর জন্য যে কাজটি করবেন তা হল- যে topic টি নিয়ে লিখবেন তাকে ৩ টি অংশ ভাগ করে নিবেন।

সেগুলো হচ্ছেঃ

1. Introduction
2. Body
3. Conclusion এ অনুযায়ী লিখবেন।

Formal or Informal Writing এর জন্য কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম দেওয়া থাকে সেগুলো অনুসরন করতে হবে। যদি আপনারা উপরুক্ত কাজগুলো করতে পারেন তবে writing নিয়ে আর চিন্তা করতে হবে না, ইনশাল্লাহ। নিচে আমি ফোকাস রাইটিং লেখার নিয়মের লিংকাপ দিয়ে দিচ্ছি দেখে নিতে পারেন, কাজে আসবেঃ

Focus Writing এর টেকনিক

আরও পড়ুনঃ

ফেইসবুকে আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল পেইজ ও অফিসিয়াল গ্রুপের সাথে যুক্ত থাকুন। ইউটিউবে পড়াশুনার ভিডিও পেতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করতে ফেসবুক আইকনে ক্লিক করুন-