মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ (SHED) এর অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদের প্রশ্ন সমাধান- ২০২১

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর প্রশ্ন সমাধান
Content Protection by DMCA.com

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ (SHED) এর অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদের প্রশ্ন সমাধান- ২০২১

পরীক্ষার তারিখঃ ১২ মার্চ ২০২১

১) অর্থসহ বাক্য রচনা করুন:
ক) কৃষ্ণের জীব =(অতিশয় নিরীহ প্রাণী) – সুমন কৃষ্ণের জীবের মত জীবন যাপন করে।
খ) খড়ি পাতা =(জ্যোতিষের গণনা) – খড়ি পাতা না করে পরিশ্রম করুন তাহলে সাফল্য পাবেন।
গ) গঙ্গাজালে গঙ্গাপুজা =(কোনোরূপ আয়াস বা অর্থব্যয় না করে উদ্দেশ্য সিদ্ধ করা) – সুমন মাঝেমাঝে গঙ্গা জলে গঙ্গা পুজা করে।
ঘ) গন্ধমাধন বাহিয়া আনা =(অবাস্তব বিষয়ের অবতারণা) – মার্জিয়া গন্ধমাদন বহিয়া আনাতে খুব পটু।
ঙ) ঘন্টা গরুর =(অকর্মণ্য লোক) – সুমনের মত ঘণ্টাগরুড় লোক আর দেখিনি।

২) শুদ্ধ করে লিখুন:
ক) পানিনি শুদ্ধঃ পাণিনি
খ) ভগবত শুদ্ধঃ ভগবদ
গ) মুর্ধন্য শুদ্ধঃ মূর্ধন্য
ঘ) রুপসী শুদ্ধঃ রূপসী
ঙ) লাঘবতা শুদ্ধঃ লাঘব

৩) বঙ্গানুবাদ করুন:
Kazi Nazrul Islam is a poet of humanity. He is a rebel poet. He is a poet of love. He is a poet of beauty. He is a soldier poet. He is a poet of young or old aged persons irrespective of caste and creed. He is also my favorite poet.

অনুবাদঃ কাজী নজরুল ইসলাম মানবতার কবি। তিনি একজন বিদ্রোহী কবি। তিনি প্রেমের কবি। তিনি সৌন্দর্যের কবি। তিনি একজন সৈনিক কবি। তিনি বর্ণ বা বর্ণ নির্বিশেষে তরুণ বা বৃদ্ধ বয়সের কবি। তিনি আমার প্রিয় কবিও।

৪) বিপরীত শব্দ লিখুন;
ক) ক্ষিপ্র = মন্থর
খ) খেদ = আহ্লাদ
গ) চূর্ণ = অখণ্ড
ঘ) জ্বলন = নির্বাপণ
ঙ) জঙ্গম = স্থাবর

৫) রচনা লিখুনঃ সাইবার অপরাধ

ভূমিকা: সাইবার অপরাধ ও সাইবার নিরাপত্তা বর্তমান বিশ্বে সর্বাধিক আলোচিত বিষয়। ‘উইকিলিকস’-এর প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ ও ‘সিআইএ’-র তথ্য ফাঁসকারী এডওয়ার্ড স্নোডেনের কল্যাণে বিষয়টি এজেন্ডা হিসেবে বিশ্বরাজনৈতিক পরিমণ্ডলে চলে আসে। তাছাড়া ‘পানামা পেপার্স’ কেলেংকারি ও ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি’ এতে নতুন মাত্রা যোগ করে। ১২ মে ২০১৭ বিশ্বের ১৫০টি দেশে একযোগে ‘র‌্যানসমওয়্যার’ দিয়ে ভয়াবহ সাইবার হামলা প্রযুক্তিপ্রেমীদের চরম আতঙ্কে ফেলে দিয়েছে। সাইবার অপরাধ একটি সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, জাতীয়, বৈশ্বিক ও নৈতিক অপরাধ। বাংলাদেশের মতো তথ্যপ্রযুক্তিতে দ্রুত উন্নয়নশীল দেশের জন্য এটি চরম উদ্বেগের বিষয়।

অপরাধ: সাধারণভাবে অপরাধ বলতে সমাজ কর্তৃক শাস্তিযোগ্য কোনো অন্যায় আচরণকে বুঝায়। সমাজবিজ্ঞানী এমিল ডুর্খেইম মনে করেন, অপরাধ একটি সামাজিক ঘটনা। এটি সমাজ ব্যবস্থার একটি ‘স্বাভাবিক’ রূপ। যদিও সমাজভেদে তা স্বল্প বা তীব্র মাত্রার হয়ে থাকে। তিনি মনে করেন সমাজে টিকে থাকার জন্য অনেক সময় অপরাধের আশ্রয় নিতে হয়। এটা সমাজ কাঠামোর দুর্বলতার ফল।

সাইবার অপরাধ: তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক অপরাধ হলো সাইবার অপরাধ। এক্ষেত্রে অপরাধী কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কম্পিউটারে অনাধিকার প্রবেশ করে ঐ ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের তথ্য-উপাত্ত চুরি করে এবং নিজ স্বার্থে তা ব্যবহার করে। এছাড়া ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিকৃত বা অসত্য তথ্য প্রকাশ, অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ বা ভিডিও প্রকাশ এবং অনুমতি ব্যতীত অন্য কারো মন্তব্য, তথ্য বা ছবি প্রকাশও সাইবার অপরাধ। ফেসবুকে বা কোনো গণমাধ্যমে কাউকে নিয়ে মানহানিকর বা বিভ্রান্তিমূলক কিছু পোস্ট করলে, ছবি বা ভিডিও আপলোড করলে, কারও নামে অ্যাকাউন্ট খুলে ভিভ্রান্তিমূলক পোস্ট দিলে, কোনো স্ট্যাটাস দিলে কিংবা শেয়ার বা লাইক দিলেও সাইবার অপরাধ হতে পারে। কাউকে ইলেকট্রনিক মাধ্যমে হুমকি দিলে, অশালীন কোনো কিছু পাঠালে কিংবা দেশবিরোধী কোনো কিছু করলে তা সাইবার অপরাধ হবে। আবার ইলেকট্রনিক মাধ্যমে হ্যাক করলে, ভাইরাস কিংবা কোনো সিস্টেমে অনধিকার প্রবেশ করলে, অনলাইনে যে কোনো অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত হলে তাও সাইবার অপরাধ।

মোদ্দা কথা, ইন্টারনেট অথবা তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে যে কোনো অপরাধ করলে তাকেই সাইবার অপরাধ বলে।

সাইবার অপরাধের মাধ্যম: প্রথমত কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহার করে সাইবার অপরাধ করা হয়। বর্তমান কম্পিউটার ও ইন্টানেট হাতের মুঠোয়। এছাড়া ট্যাব, স্মার্টফোন এসব ব্যবহার করে নিমিষে ‘বিশ্বভ্রমণ’ করা যায়। অ্যাকসেস করা যায় ফেসবুক, টুইটার, ইয়াহু, স্কাইপ, ভাইভার, ইমো, ম্যাসেঞ্জার, হোয়াইটসঅ্যাপে। এছাড়া আছে গুগল, গুগল প্লাস, ডুডুল, লিংকডইন, ইনস্ট্যাগ্রাম, ফ্লিকার, কম্পিউটার ও ক্লাউড। এ মাধ্যমগুলো ব্যবহার করে হ্যাকিং, সাইবার বুনিং, ই-মেইল স্পাম ও ফিশিং, অনলাইন কেলেঙ্কারি ও প্রতারণা, নারী ও শিশুদের বিকৃত ছবি আপলোডসহ, ইলেক্ট্রনিক মানি লন্ডারিং, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের জন্য পারস্পরিক যোগাযোগ, টেলিযোগাযোগের মাধ্যমে ষড়যন্ত্র, সাইবার সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি ইত্যাদি সাইবার অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সংঘটিত হচ্ছে।

সাইবার অপরাধ ও বাংলাদেশ : বর্তমান বিশ্বঅর্থনীতিতে বাংলাদেশ সুদৃঢ় অবস্থানে থাকলেও এটি একটি তৃতীয় বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশ যার ফলে তথ্য ও প্রযুক্তিখাতে এখনো পরিপক্ব হয়ে ওঠেনি এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রে বৈদেশিক সফ্টওয়্যার এর উপর নির্ভরশীল হওয়ার ঘন ঘন সাইবার হামলার স্বীকার হচ্ছে।

নিম্নে কয়েকটি সাইবার হামলার আলোচনা দেওয়া হলো –
বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি: যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে গচ্ছিত রাখা বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে ১০১ মিলিয়ন ডলার বা ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার অর্থ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে চুরি হয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার কারণে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরকে পদত্যাগ করতে হয়।

এটিএম, ডেবিট, ক্রেডিট কার্ড জালিয়াতি: ২০১৬ সালে বাংলাদেশের বেসরকারি ব্যাংকের পাইরেসি করা এটিএম, ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে এটিএম বুথ থেকে প্রচুর অর্থ লুটের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জের ধরে ৪ মার্চ ২০১৬ পুলিশ ১৪ ব্যক্তিকে আটক করে তাদের মধ্যে ১২ জন ছিল বিদেশি নাগরিক যারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সাইবার অপরাধের সাথে জড়িত।

বাংলাদেশে সংঘটিত আরও কয়েকটি সাইবার অপরাধ: ২০১২ সালে ফেসবুকে গুজব ছড়িয়ে কক্সবাজারে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের ওপর হামলা করা হয়। সম্প্রতি কে বা কারা পূর্ণিমা শীলের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে তার ছবি ও টেলিফোন নম্বর দিয়ে তার নামে পর্নোগ্রাফির ফেসবুক পেজ খোলে। কয়েকদিন আগে ফেসবুকে ইসলাম অবমাননার গুজব রটিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা করা হয়। তা ছাড়া ফটোশপের মাধ্যমে এর ছবি ওর সঙ্গে জড়িয়ে দেওয়া ঘটনা ক্রমাগত ঘটছে। এমনকি ২০০৮ সালের দিকে র‌্যাবের ওয়েবসাইট হ্যাক করা হয়। এসব ঘটনা আমাদের সাইবার নিরাপত্তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করে।

সাইবার অপরাধ প্রতিরোধের উপায়: বাংলাদেশে যেভাবে সাইবার অপরাধ বৃদ্ধি পাচ্ছে তার লাগাম টেনে না ধরা গেলে নিকট ভবিষ্যতে তা আরও ভয়ানক আকার ধারণ করতে পারে। নিচে প্রতিকারের উপায়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হলো:

– ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে ‘কাউন্টার টেরোজিম ও ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট’ গঠন করা হয়েছে, যা সাইবার অপরাধের বিষয়গুলো দেখছে। তবে পুলিশ সাইবার অপরাধ বিষয়ক নতুন ইউনিট খোলা প্রয়োজন। যার কাজ হবে সাইবার অপরাধের সাথে সংশ্লিষ্ট আইনগুলোকে যথাযথ প্রয়োগ করা।

– তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইন, ২০০৬ (সংশোধিত ২০১৩)-এর ৫৪, ৫৬, ৫৭ ধারা অনুযায়ী বর্তমানে সাইবার অপরাধ সংক্রান্ত মামলার রায় দেওয়া হয়। কিন্তু ৫৭ ধারা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন আছে যে, এ ধারায় মানুষের বাক-স্বাধীনতাকে অবহেলা করা হয়েছে। তাই ৫৭ ধারাকে সংশোধন করে সময়ের উপযোগী করে আইন তৈরি করা প্রয়োজন।

– কেবল আইন তৈরি করে নয়, আইন প্রয়োগের সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার পরিবর্তন আনতে হবে। ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রিমিনোলজি এবং মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রিমিনোলজি ও পুলিশ বিভাগ রয়েছে। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আরও দুয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রিমিনোলজি বিভাগ চালু করে সাইবার অপরাধ ও নিরাপত্তা বিষয়ে পর্যাপ্ত গবেষণার সুযোগ সৃষ্টি করা প্রয়োজন।

– ব্যাংকে দেশীয় সফ্টওয়ার ব্যবহার করা উচিত যাতে বর্তমান সময়ে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলোর পুনরাবৃত্তি এড়ানো যায়।

– সাইবার অপরাধ সংঘটিত হলে সাথে সাথে ব্যবস্থা নিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে আর এরকম ঘটনা না ঘটতে পারে।

– আইন শৃঙ্খলা বাহিনী এবং প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিদেরকে নিয়ে টার্সফোর্স গঠন করতে হবে, যাতে তারা সাইবার নিরাপত্তার উপর সার্বক্ষণিক নজর রাখতে পারে।

– আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে এবং আমাদের এন্টিভাইরাস ও সিকিউরিটি সফ্টওয়্যার সবসময় হালনাগাদ রাখতে পারে।

– গবেষণায় দেখা গেছে ৭০/৮০ ভাগ সাইবার অপরাধের সাথে জড়িত থাকে অফিসিয়াল কর্মকরর্তা। এক্ষেত্রে সকল অফিস, ব্যাংক, বীমা প্রতিষ্ঠানে নজরদারি বাড়ানো উচিত যাতে অসৎ কর্মকর্তাদেরকে চিহ্নিত করা যথাযথ আইনের অধীনে এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা যায়।

উপসংহার: ‘পে-পাল’ বাংলাদেশে এসেছে। নিকট ভবিষ্যতে আসবে ‘ইবে’, ‘আমাজন’, ‘আলিবাবা’। তাই অনলাইন বিপণনে আর্থিক ব্যবস্থাপনার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। যুগোপযোগী ও যথাযথ আইন প্রণয়ন করে সাইবার নিরাপত্তা বাড়ানো উচিত। শিক্ষার্থীদের সাইবার ইথিক্স শেখানো উচিত। যাতে পূর্ণিমাশীলদের বাকিটা জীবন নির্বিঘ্নে; অভিজিৎরা তাদের চিন্তা-চেতনা নিয়ে বেঁচে থাকতে পারে, রাজকোষ ও জনতার অর্থ নিরাপদ হয়। নিশ্চিত হয় ডিজিটাল বাংলাদেশের নিরাপত্তা।

৬) Fill in the gap with appropriate word(s):
a) It looks ______ she will start crying. উত্তরঃ like
b) I shall adhere ______ my plan. উত্তরঃ to
c) I wish I _____ a philosopher. উত্তরঃ were
d) The child cried for _____ mother. উত্তরঃ its
e) The man was accused ______ murder. উত্তরঃ of

৭) Write a short note on “Bangabandhu’s Speech of 7″ March”

The 7 March Speech of Bangabandhu was a speech given by Sheikh Mujibur Rahman, the founding father of Bangladesh on 7 March 1971 to a gathering of over two million people. It was delivered during a period of escalating tensions between East Pakistan and the powerful political and military establishment of West Pakistan.

He announced a civil disobedience movement in the province, calling for “every house to turn into a fortress”. The speech inspired the Bengali people to prepare for a war of independence amid widespread reports of armed mobilisation by West Pakistan. The Bangladesh Liberation War began 18 days later, when the Pakistan Army launched Operation Searchlight against Bengali civilians, intelligentsia, students, politicians, and armed personnel.

In his historic address, Sheikh Mujib declared, ‘Ebarer Sangram Amader Muktir Sangram, Ebarer Sangram Swadhinatar Sangram’ (The struggle this time is for our emancipation, the struggle this time is for the independence). He made the clarion call to turn every home into a fortress of resistance against the Pakistani army.

Bengalis reacted with unprecedented rage after the then Pakistani military ruler Yahya Khan postponed the National Assembly session scheduled for March 1, 1971. Stunned by the treachery, Sheikh Mujib immediately launched an unprecedented non-cooperation movement dealing a crippling blow to the military rulers.

And on March 7, 1971, he gave the historic address at Suhrawardy Udyan, the then Race Course, which inspired the nation to fight for independence. The address reduced the governmental authorities in the then East Pakistan to useless showpieces as everything ran according to Mujib’s day-to-day edicts.

This continued until the military junta retaliated with the crackdown and the accompanying brutalities against the unarmed Bengalis on the fateful midnight of March 25, 1971 and the rest is history.

The historic March 7 speech of Mujib has been included in the memory of the World International Register, a list of world’s important documentary heritage maintained by UNESCO.

৮) Write down synonyms of the following words:
a) Velocity = Speed
b) Rudimentary = Basic
c) Cease = End

৯) Write down antonyms of the following words:
a) Vice = virtue
b) Scanty =abundant

১০) Make sentences with the following phrases idioms with meaning in Bangla:
a) Add insult to = (কাটা ঘায়ে নুনের ছিটা) – Do not add insult to a helpless people.
b) Above one’s head = (বোঝা দুঃসাধ্য এমন) – The lecturer of English is going to above my head.
c) Get by heart = (মুখস্ত করা) = Do not get by heart all the mathematics.
d) Read between the lines = (তাৎপর্য বোঝা) – Please read between the lines to answer the question.
e) Maiden speech = (প্রথম বক্তৃতা) – Maiden speech is important for all politician of a party programme.

১১) Translate into English:
ক) তাঁর জন্য জায়গা করে দাও = Make room for him.
খ) সে কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে গেল = He found himself at his wit’s end.
গ) সুন্দরেরা যা করে তাই সুন্দর = Handsome is that handsome does.
ঘ) কর্তৃপক্ষ তাকে তিরস্কার করল = The authorities took him to task.
ঙ) নদীর তীরে এক কুটিরে তার বাস = He lives in a hut on the river bank.

১২) এক বাক্তি কোনো দ্রব্যের ধার্যমূল্যের ৮% কমিশন দিয়েও ১৫% লাভ করে। যে দ্রবের ক্রয়মূল্য ২৮০ টাকা তাল ধার্যমূল্যে কত?
উত্তরঃ ৩৫০ টাকা।
১৩) বার্ষিক শতকরা ১০% হারে ১০০০ টাকার ৩ বছর পর সরল ও চক্রবৃদ্ধির মুনাফার পার্থক্য কত?
উত্তরঃ সরল মুনাফা, I =1000×3×10/100 =300
IC =1000{(1+10/100)3−1}=1000(1331/1000−1)=1000×331/1000=331 টাকা
∴ সরল ও চক্রবৃদ্ধি মুনাফার পার্থক্য =(331-300) টাকা = 31 টাকা।

১৪) 1/√2, 1, √2 ….. ধারাটির কোন পদ 8√2 হবে?
উত্তরঃ এখানে প্রথমপদ, a = 1/√2
সাধারণ অনুপাত, r = √2
ধরি r তম পদ হবে = 8√2

প্রশ্নমতে, arn−1 = 8√2
বা, 1/√2 × (√2)n−1 = 8√2
বা, (√2)n−1 = 8√2 × √2
বা, (√2)n−1 = (√2)6 × √2 × √2
বা, (√2)n−1 = (√2)8
বা, n−1 = 8
∴ n = 9

১৫) 125(√5)2x=1 হলে x এর মান কত?
উত্তরঃ 125 (√5)2x = 1
=> 53 (√5)2x = 1
=> 53.52x.1/2 = 1
=> 53+x = 50
=> 3 + x = 0
∴ x = -3

১৬) SPARRSO এর পূর্ণ রূপ কী?
উত্তর : Space Research and Remote Sensing Organization.

১৭) বাংলাদেশের মানচিত্র প্রথম কে আকেন?
উত্তরঃ ১ জানুয়ারি ১৭৬৭ ′Bengal Survey′ নামে প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জেমস্ রেনেল সর্বপ্রথম ভারতের মানচিত্র অঙ্কন করেন, যা ১৯৪৭ পর‌্যন্ত বলবৎ ছিল। পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা – পরবর্তী এ প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তন করে Survey of Bangladesh রাখা হয়।

১৮) বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের ইংরেজি অনুবাদক কে?
উত্তরঃ বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের ইংরেজি অনুবাদক সৈয়দ আলী আহসান। সৈয়দ আলী আহসান (২৬ মার্চ ১৯২২ – ২৫ জুলাই ২০০২) বাংলাদেশের একজন খ্যাতনামা সাহিত্যিক, কবি, সাহিত্য সমালোচক, অনুবাদক, প্রাবন্ধিক ও শিক্ষাবিদ। ১৯৮৯ খ্রিষ্টাব্দে বাংলাদেশ সরকার তাঁকে জাতীয় অধ্যাপক হিসেবে স্বীকৃতি প্রদান করে। তিনি তাঁর পাণ্ডিত্যের জন্য প্রসিদ্ধ ছিলেন।

সৈয়দ আলী আহসানকৃত বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের ইংরেজি অনুবাদ সরকারি ভাষান্তর হিসাবে স্বীকৃত।

১৯) মুজিবনগর স্মৃতি সৌধের স্থপতি কে?
উত্তরঃ মুজিবনগর স্মৃতিসৌধ মেহেরপুর জেলার মুজিবনগরে অবস্থিত। মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার যেখানে গঠিত হয় সেখানে এই স্মৃতিসৌধটি গড়ে তোলা হয়েছে। এর স্থপতি তানভীর কবির।

২০) United Nations Environment Programme (UNEP) এর সদর দপ্তর কোথায় অবস্থিত?
উত্তরঃ নাইরোবি, কেনিয়া।

২১) অসলো শান্তি চুক্তি কোন সালে স্বাক্ষরিত হয়?
উত্তরঃ OSLO নামক শান্তি চুক্তিটি যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে ১৯৯৩ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর স্বাক্ষরিত বা সম্পাদিত হয়। এ চুক্তিটি সম্পাদিত হয় ইসরাইল ও ফিলিস্তিন মুক্তি সংস্থার মধ্যে।

২২) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি সংরক্ষণ ও প্রদর্শন বাংলাদেশের সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদে উল্লেখ আছে?
উত্তরঃ সংবিধানে ৪ক অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার ও প্রধান বিচারপতির কার্যালয় এবং সব সরকারি আধা-সরকারি অফিস, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, সংবিধিবদ্ধ সরকারি কর্তৃপক্ষের প্রধান ও শাখা কার্যালয়, সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশের দূতাবাস ও মিশনগুলোতে সংরক্ষণ ও প্রদর্শন করতে হবে।

২৩) UNODC এর পূর্ণরূপ লিখুন।
উত্তরঃ United Nations Office on Drugs & Crime.

২৪) INCB এর পূর্ণরূপ লিখুন।
উত্তরঃ The International Narcotics Control Board.

২৫) ব্রিটেনের অর্থমন্ত্রীকে কী বলা হয়?
উত্তরঃ চ্যান্সেলর অব এক্সচেকার।

২৬) NAFTA এর পূর্ণরূপ লিখুন।
উত্তরঃ North American Free Trade Agreement.

২৭) মুক্তিযুদ্ধের স্মারক ভাস্কর্য “প্রজন্ম” কোথায় অবস্থিত?
উত্তরঃ রংপুর কারমাইকেল কলেজ।

২৮) রাজেন্দ্রপুর সেনানিবাসে অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি স্তম্ভের নাম কি?
উত্তরঃ রাজেন্দ্রপুর সেনানিবাসে অবস্থিত মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভের নাম রক্ত সোপান।

২৯) আন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল কবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল?
উত্তরঃ ২০১০ সালের ২৫শে মার্চ আন্তর্জাতিক অপরাধ (ট্রাইবুনাল) আইন ১৯৭৩-এর ৬ ধারার বলে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হয় ।

৩০) বাংলাদেশের সংবিধানে জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসন কোন সালে প্রথম যুক্ত হয়?
উত্তরঃ

৩১) জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় Green Climate Fund বিশ্বের দরিদ্র দেশ গুলোর জন্য কি পরিমান অর্থ মঞ্জুর করেছে?
উত্তরঃ ১০০ বিলিয়ন ডলার। ৭-১৮ ডিসেম্বর ২০০৯ ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে অনুষ্ঠিত হয় COP-15 সম্মেলন। এ সম্মেলনেই প্রথমবারের মতো বৈশ্বিক তাপমাত্রা ২ ডিগ্রী সেলসিয়াসে সীমিত রাখার ব্যাপারে ঐকমত্যে পৌঁছে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ। আর উক্ত সম্মেলনে Green Climate Fund বিশ্বের দরিত্র দেশগুলোকে ১০০ বিলিয়ন ডলার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়।

৩২) কোন সংকটকে কেন্দ্র করে ১৯৫০ সালে শাস্তির জন্য এক্য প্রস্তাব জাতিসংঘের মাধ্যমে পেশ করা হয়?
উত্তরঃ ১৯৫০ সালে কোরীয় যুদ্ধের সময় সৃষ্ট সংকট মোকাবিলায় একই বছরের ৩ নভেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ কর্তৃক গৃহীত একটি প্রস্তাব ‘ শান্তির জন্য ঐক্য প্রস্তাব’ বা The Uniting for Peace Resolution.

৩৩) Long walk to freedom কার আত্মজীবনী?
উত্তরঃ নেলসন মেন্ডেলা।

৩৪) CEDAW এর পূর্ণ রূপ কী?
উত্তরঃ Convention on the Elimination of all forms of Discrimination against Women. (নারীর প্রতি সকল প্রকার বৈষম্য বিলোপ কনভেনশন)।

৩৫) পাবলো পিকাসো কোন ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় গোয়ের্নিকা ছবিটি আঁকেন?
উত্তরঃ গের্নিকা (স্পেনীয়: Guernica) পাবলো পিকাসো কর্তৃক আঁকা একটি বিখ্যাত চিত্রকর্ম। এটি স্পেনীয় গৃহযুদ্ধের সময় এপ্রিল ২৬, ১৯৩৮ সালে স্পেনীয় জাতীয়তাবাদী বাহিনীর নির্দেশে জার্মান এবং ইতালীয় যুদ্ধ বিমান কর্তৃক উত্তর স্পেনের বাস্ক কান্ট্রি গ্রাম গের্নিকায় বোমাবর্ষণের প্রতিক্রিয়ায় প্রকাশ হিসেবে তৈরি হয়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ (SHED) এর  প্রশ্ন সমাধান ছাড়া আরও পড়ুনঃ

ফেইসবুকে আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল পেইজ ও অফিসিয়াল গ্রুপের সাথে যুক্ত থাকুন। ইউটিউবে পড়াশুনার ভিডিও পেতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।