জাতিসংঘ নিয়ে সর্ববৃহৎ পোস্ট

আফগানিস্তান ছাড়ছে আমেরিকা, অথচ উৎসব নেই কোথাও
Content Protection by DMCA.com

জাতিসংঘ নিয়ে সর্ববৃহৎ পোস্ট

জাতিপুঞ্জ – League of Nations

📌 ১ম বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন জার্মান সরকার মার্কিন প্রেসিডেন্ট উড্রো উইলসনকে ১৯১৮ সালের অক্টোবরে একটি সাধারণ যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানায়।
📌 এই সাধারণ যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে উড্রো উইলসন তাঁর বিখ্যাত ১৪ দফা পেশ করেন।
📌 উইলসনের ১৪ দফার পরিপ্রেক্ষিতে ১৯১৯ সালের ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ভার্সাই চুক্তির মাধ্যমে জাতিপুঞ্জের সৃষ্টি হয়।
📌 জাতিপুঞ্জের প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় ১৯২৬ সালের ১৬ জানুয়ারি।
📌 জাতিপুঞ্জের সদরদপ্তর ছিল সুইজারল্যান্ডের জেনেভায়।

📌 জাতিপুঞ্জের অঙ্গসংস্থা ছিল ৩টি — পরিষদ, কাউন্সিল, সচিবালয়।
📌 সদস্য সংখ্যা ছিল ৪২ টি দেশ।
📌 উদ্দেশ্যে ছিল ১ম বিশ্বযুদ্ধের পর বিশ্বশান্তি বজায় রাখা।
📌 ২য় বিশ্বযুদ্ধে ঠেকাতে ব্যর্থ হওয়ায় ১৯৪৬ সালের ২০ এপ্রিল সংস্থাটি বিলুপ্ত হয়।
📌 জাতিপুঞ্জের উত্তরসূরী হল জাতিসংঘ।

#নাম- United Nations (UN)
#প্রতিষ্ঠা- ২৪ অক্টোবর, ১৯৪৫ (জাতিসংঘ সনদ কার্যকর)

#প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য- ৫১
#বর্তমান সদস্য- ১৯৩
#সর্বশেষ সদস্য- দক্ষিণ সুদান (১৪ জুলাই ২০১১)
#সদর দপ্তর- নিউইয়র্ক
#ইউরোপীয় সদর দপ্তর- জেনেভা

#মূল সংস্থা- ৬টি
#অফিশিয়াল/দাপ্তরিক ভাষা- ৬টি
#সচিবালয়ে ব্যবহৃত ভাষা- ২টি (ইংরেজি ও ফরাসি)
#বর্তমান মহাসচিব- পর্তুগালের নাগরিক
আন্তোনিও গুতারেস।
#জাতিসংঘ গঠন

#জাতিসংঘ গঠনের ৭টি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা বা পদক্ষেপ উল্লেখযোগ্য। এগুলো হল-
১. লন্ডন ঘোষণা
২. আটলান্টিক সনদ : ১৪ আগস্ট, ১৯৪১;
#তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্কলিন ডি রুজভেল্ট ও বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী উইন্সটন চার্চিল আটলান্টিক মহাসাগরে বৃটিশ নৌ-তরী ‘প্রিন্সেস অব ওয়েলস’-এ বিশ্ব শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য এক ঘোষণা দেন। এটিই আটলান্টিক সনদ নামে পরিচিত।

৩. মস্কো সম্মেলন
৪. তেহরান সম্মেলন
৫. ডাম্বারটন ওকস সম্মেলন
৬. ইয়াল্টা সম্মেলন

৭. সানফ্রান্সিসকো সম্মেলন : ২৫ এপ্রিল ১৯৪৫, #সানফ্রান্সিসকো’তে ৫০টি দেশের প্রতিনিধিরা একটি সম্মেলনে যোগ দেন। ২৬ ‍জুন তারা ১১১ ধারা সম্বলিত জাতিসংঘ সনদ স্বাক্ষর করেন। ১৫ অক্টোবর সম্মেলনে অংশ না নেয়া প্রথম দেশ হিসেবে পোল্যান্ড জাতিসংঘ সনদে স্বাক্ষর করে। আর সনদটি কার্যকর হয় ২৪ অক্টোবর। অর্থাৎ সানফ্রান্সিসকো সম্মেলনে উপস্থিত না থেকেও জাতিসংঘ সনদ কার্যকর হওয়ার পূর্বেই তাতে স্বাক্ষর করে পোল্যান্ড। অর্থাৎ, সানফ্রান্সিসকো সম্মেলনে উপস্থিত রাষ্ট্র ৫০টি, কিন্তু সেই সম্মেলনে গৃহীত সনদে স্বাক্ষরকারী দেশ ৫১টি (পোল্যান্ড’সহ)।

#জাতিসংঘ সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ তথ্য
#জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠাকালিন সদস্য ছিল- ৫১ টি
#সানফ্রান্সিসকো সম্মেলনে উপস্থিত সদস্য- ৫০ টি
#জাতিসংঘ সনদ স্বাক্ষরিত হয়- ২৬ জুন, ১৯৪৫

#জাতিসংঘ সনদের মূল স্বাক্ষরকারী দেশ- ৫১ টি
#জাতিসংঘ সনদ কার্যকরী হয়- ২৪ অক্টোবর, ১৯৪৫ সালে
#জাতিসংঘ দিবস- ২৪ অক্টোবর
#জাতিসংঘের সদর দপ্তর- নিউইয়র্ক

#জাতিসংঘের সদস্য নয়- তাইওয়ান, ভ্যাটিকান, কসোভো এবং ফিলিস্তিন
#জাতিসংঘের স্থায়ী পর্যবেক্ষক- ভ্যাটিকান এবং ফিলিস্তিন
#জাতিসংঘ সনদ স্বাক্ষরকারী সম্মেলনে (সানফ্রান্সিসকো সম্মেলনে) উপস্থিত না থেকেও যে দেশটি জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য হিসেবে পরিগণিত হয়- পোল্যান্ড

#জাতিসংঘের বর্তমান সদস্য- ১৯৩
#জাতিসংঘের সর্বশেষ সদস্য- দক্ষিণ সুদান
#দক্ষিণ সুদান জাতিসংঘের সদস্য পদ লাভ করে- ১৪ জুলাই
#জাতিসংঘ হতে স্বেচ্ছায় পদত্যাগকারী একমাত্র দেশ- ইন্দোনেশিয়া

#ইন্দোনেশিয়া পদত্যাগ করে পুনরায় ফিরে আসে- ১৯৬৫
#পূর্বে কোন দেশ জাতিসংঘের সদস্য ছিল বর্তমানে নেই- তাইওয়ান
#তাইওয়ান চীনের নিকট জাতিসংঘের সদস্যপদ হারায়- ১৯৭১
#বিশ্বের স্বাধীন দেশ হয়েও জাতিসংঘের সদস্য নয়- ভ্যাটিকান ও কসোভো

জাতিসংঘের সংস্থা

#জাতিসংঘের মূল সংস্থা- ৬টি (বর্তমানে অবশ্য কার্যকর সংস্থা ৫টি । কারণ, ১৯৯৪ সালে পালাউ’র স্বাধীনতার পরপর অছিপরিষদ (Trusteeship Council) স্থগিত করা হয়।)।

সাধারণ পরিষদ General Assembly

#সাধারণ পরিষদের প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়- লন্ডনের ওয়েস্ট মিনিস্টার হলে ।
#সাধারণ পরিষদে প্রতিটি দেশের ভোট দেয়ার ক্ষমতা- ১টি।
#বাংলাদেশ সাধারণ পরিষদের সভাপতি নির্বাচিত হয়- ১৯৮৬ সালে।
#সভাপতিত্ব করেন- হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী।

২। নিরাপত্তা পরিষদ Security Council

#নিরাপত্তা পরিষদ পরিচিত– স্বস্তি পরিষদ নামে
#নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য সংখ্যা- ১৫ টি (৫ টি স্থায়ী ও ১০ টি অস্থায়ী)
#৫টি স্থায়ী রাষ্ট্র- যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, ফ্রান্স ও চীন
#১৯৬৫সালের আগে নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য ছিল- ১১ টি
#নিরাপত্তা পরিষদের কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য কমপক্ষে- ৫ টি স্থায়ী সদস্যের ও ৯ টি অস্থায়ী সদস্য রাষ্ট্রের সম্মতি প্রয়োজন

#ভেটো মানে- আমি এটা মানি না (না ভোট)
#জাতিসংঘে ভেটো দানের ক্ষমতা আছে- নিরাপত্তা পরিষদের ৫টি স্থায়ী রাষ্ট্রের
#বাংলাদেশ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য হয়- মোট ২ বার (১৯৭৮ ও ১৯৯৯)
#২য় বার বাংলাদেশ (১৯৯৯ সালে নির্বাচিত, ২০০০-০১ মেয়াদে) সভাপতির দায়িত্ব পালন করে
#সভাপতিত্ব করেন- আনোয়ারুল করিম চৌধুরী

৩।অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদ

Economic and Social Council (ECOSOC)

৪। আন্তর্জাতিক আদালত*
#International Court of Justice
#World Court
#ICJ)

#জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক আদালত পরিষদের নাম- স্থায়ী সালিশী আদালত
#আন্তর্জাতিক আদালতের সদর দফতরের নাম- শান্তি প্রাসাদ (হেগ, নেদারল্যান্ডস)
#আন্তর্জাতিক আদালতের বিচারক- ১৫ জন
#আন্তর্জাতিক আদালতের বিচারকদের মেয়াদ- ৯ বছর
#আন্তর্জাতিক আদালতের বর্তমান প্রেসিডেন্ট- হিশাস ওয়াদা (Hisashi Owada)

৫। সচিবালয়
#Secretariat

৬। অছি পরিষদ
#Trusteeship Council
#১৯৯৪সালে পালাউ স্বাধীন হলে জাতিসংঘের এই সংস্থাটি স্থগিত (suspended) করা হয় ।

#২০০২সালে আন্তর্জাতিক অপরাধী আদালত (International Criminal Court) (ICC, ICCt) প্রতিষ্ঠা করা হয় । এটিও জাতিসংঘের আওতাভুক্ত, তবে তাদের কাজেকর্মে অনেকটাই স্বাধীন । এটি কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে গণহত্যা, যুদ্ধাপরাধ, মানবতা বিরোধী অপরাধ প্রভৃতির বিচার করে । তবে ২০০২ সালের ১ জুলাই যেদিন এটি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে চুক্তি স্বাক্ষর করা হয় তার আগের কোন অপরাধ এই আদালতের আওতাধীন হবে না ।

#ICC প্রতিষ্ঠা- ১ জুলাই ২০০২
#ICC র সদর দপ্তর- হেগ, নেদারল্যান্ডস
#ICC র সদস্য- ১১৬ (১ নভেম্বর থেকে ১১৭; ১ ডিসেম্বর থেকে ১১৮)
#বাংলাদেশ ICC র সদস্য নয়/ চুক্তি স্বাক্ষর করেনি

UN Women : জাতিসংঘের সর্বশেষ অঙ্গসংস্থা
#জাতিসংঘের সর্বশেষ অঙ্গসংস্থা (১৭তম)
#অনুমোদন লাভ- ২ জুলাই ২০০৯
#কার্যক্রম শুরু- ১ জানুয়ারি ২০১১
#পুরো নাম/ আসল নাম- United Nations Entity for Gender Equlity and the Empowerment of Women

#প্রধান- মিশেল ব্যাচলেট (চিলির প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট; জাতিসংঘের পরবর্তী উপমহাসচিব)
#সদর দপ্তর- নিউইয়র্ক
#জাতিসংঘের মহাসচিব
#জাতিসংঘ মহাসচিবের মেয়াদ- ৫ বছর (প্রকৃতপক্ষে মহাসচিবের পদের নির্দিষ্ট কোন মেয়াদ নেই । তবে ঐতিহ্যগতভাবে মহাসচিব ৫ বছরের জন্য ১ বা ২ মেয়াদে নির্বাচিত হন)

#জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিব- ট্রিগভে লি (Trygve Lie) (নরওয়ে)
#জাতিসংঘের একমাত্র মুসলমান মহাসচিব- কফি আনান (ঘানা)
#মুক্তিযুদ্ধের সময় জাতিসংঘের মহাসচিব ছিলেন- উ থান্ট (মায়ানমার) (প্রথম এশীয় মহাসচিব)
#জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব- বান কি মুন (দক্ষিণ কোরিয়া) (নির্বাচিত হন- ২০০৭ সালে)
#জাতিসংঘের মহাসচিবদের মধ্যে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান- দ্যাগ হেমারশোল্ড(১৯৬১) ও কফি আনান(২০০১)

#জাতিসংঘের যে মহাসচিব মরণোত্তর শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান- দ্যাগ হেমারশোল্ড(১৯৬১)
#জাতিসংঘে বাংলাদেশ
#সদস্যপদ লাভ
১৩৬তম সদস্য
১৯৭৪ (১৭ সেপ্টেম্বর)
#UN-এর নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য (স্বস্তি পরিষদ)

#মোট ২ বার ২য় বার বাংলাদেশ (১৯৯৯ সালে নির্বাচিত, ২০০০-০১ মেয়াদে) সভাপতির দায়িত্ব পালন করে সভাপতিত্ব করেন আনোয়ারুল করিম চৌধুরী
১ম বার : ১৯৭৮ (১০ নভেম্বর)
২য় বার : ১৯৯৯ (১৪ অক্টোবর)
#UN-এর সাধারণ পরিষদের সভাপতি

#সভাপতিত্ব করেন হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী ১৯৮৬
#জাতিসংঘ ঘোষিত শীর্ষ সম্মেলন
#সম্মেলন,স্থান,সময়কাল
#শিশু বিষয়ক বিশ্ব শীর্ষ সম্মেলন
নিউইয়র্ক-১৯৯০

#পরিবেশ ও উন্নয়ন সম্মেলন (ধরিত্রী সম্মেলন) রিওডি জেনিরো-১৯৯২
#বিশ্ব মানবাধিকার সম্মেলন ভিয়েনা-১৯৯৩
#আন্তর্জাতিক জনসংখ্যা ও উন্নয়ন সম্মেলন
কায়রো-১৯৯৪

#চতুর্থ বিশ্ব নারী সম্মেলন বেইজিং-১৯৯৫
#পরিবেশ সম্মেলন+৫ নিউইয়র্ক-১৯৯৭
#বর্ণবাদ ও বর্ণবৈষম্য বিরোধী বিশ্ব সম্মেলন ডারবান-২০০১
#জাতিসংঘ ও নোবেল (শান্তিতে)
#জাতিসংঘ মোট নোবেল পায়- ৮ বার

#জাতিসংঘ/ জাতিসংঘের মহাসচিব নোবেল পায়- ২ বার
#জাতিসংঘের অঙ্গসংস্থাগুলো নোবেল পায়- ৬ বার
#জাতিসংঘের মোট- ৫টি অঙ্গসংস্থা নোবেল পেয়েছে (UNHCR, UNICEF, ILO, IAEA, IPCC)
#জাতিসংঘের যে অঙ্গসংস্থা ২ বার নোবেল পেয়েছে- UNHCR
#জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক বর্ষ

প্রতিবন্ধী বর্ষ- ১৯৮১
নারীবর্ষ- ১৯৮৪
আদিবাসী বর্ষ- ১৯৯৩
আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য বর্ষ
আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক সৌহার্দ্য বর্ষ ২০১০

আন্তর্জাতিক নাবিক বর্ষ
আন্তর্জাতিক যুব বর্ষ- ১২ আগস্ট ২০১০ থেকে ১১ আগস্ট ২০১১
আন্তর্জাতিক বন বর্ষ
আন্তর্জাতিক রসায়ন বর্ষ ২০১১

Int’l year for people of African Descent
International Year of Cooperatives
International Year of Sustainable Energy for All ২০১২
International Year of Water Cooperation- ২০১৩

Extra information of UN:-

★ জাতিসংঘের সদর দপ্তরের জমি দান করেন “জন ডি রকফেলার জুনিয়র”
★ জাতিসংঘের সনদের রচয়িতা হলেন:- Archibald Macleish

★ জাতিসংঘের বাজেট ঘোষিত হয় দু’বছরে একবার
★ জাতিসংঘের সদস্য রাষ্ট্র নয় ৪ টি দেশ তা হল:– ১) তাইওয়ান ২) ভ্যাটিকান সিটি ৩) কসোভো ৪) ফিলিস্তিন
★ জাতিসংঘের রেডিও বাংলা যাত্রা শুরু করে ২১ ফ্রেব্রুয়ারি ২০১৩ সালে।

★ জাতিসংঘের রেডিও ওয়েবসাইটে খবর প্রচার করা হয় ৯ টি ভাষায়।
★ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের প্রথম নারী সভাপতি হল:- বিজয়া লক্ষ্মী পণ্ডিত (ভারত)
★ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে প্রথম মুসলিম নারী সভাপতি (২০০৬) ছিল:- সায়খা হায়া বিনতে রশিদ আল খলিফা (বাহরাইন)
★ Veto শব্দটি হল :- ল্যাটিন শব্দ

★ নিরাপত্তা পরিষদে সর্বোচ্চবার অস্থায়ী সদস্য নির্বাচিত হয়েছে “জাপান”
★ অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদের প্রতি বছর এবং তিন বছর মেয়াদের জন্য সদস্য নির্বাচিত হয় ১৮ জন।
★ অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদের আঞ্চলিক কমিশন রয়েছে ৫ টি

★ আন্তর্জাতিক শান্তিরক্ষী বাহিনী (১৯৮৮ সালে) বিশ্বব্যাপী শান্তিরক্ষা কার্যক্রমের মধৌমে বিবাদ মীমাংসায় ভূমিকার জন্য নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।
★ জাতিসংঘ ২০০১ সালে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।
★ IAEA ২০০৫ সালে বিশ্বের পরমাণু অস্ত্রবিস্তার রোধ নিরস্ত্রীকরণ এবং শান্ততিপুর্ণ ব্যবহারে যথাযোগ্য ভূমিকা পালনের স্বীকৃতি স্বরূপ নোবেল লাভ করেন।

জাতিসংঘের নোবেল সংক্রান্ত :—

১)করডেল হান্স ১৯৪৫ সালে জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠায় নেতৃত্ব দানের জন্য নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।
২)দ্যাগ হ্যামারশোন্ড ১৯৬১ সালে কঙ্গো সংকট নিষ্পত্তিতে ভূমিকার জন্য নোবেল পুরস্কার পান।

জাতিসংঘের প্রস্তাব সংক্রান্ত :–

১)জাতিসংঘের ৬৬১ নাম্বার প্রস্তাব হল:- ইরাক কুয়েত যুদ্ধ
২) জাতিসংঘের ১২৬৭ নাম্বার প্রস্তাব হল:-আফগানিস্তান সংক্রান্ত

৩) জাতিসংঘের ১৪৪১নাম্বার প্রস্তাব হল:- ইরাকে অস্ত্র পর্যবেক্ষণ
৪) জাতিসংঘের ১৭৮৭ নাম্বার প্রস্তাব হল:- আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী আইন
৫) জাতিসংঘের ১৮১০ নাম্বার প্রস্তাব হল:-WMD এর বিস্ফোরণ প্রতিরোধ
৮) জাতিসংঘের ২০৮১ নাম্বার প্রস্তাব হল:- আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালে সাবেক যুগোস্লাভিয়া জন্য আইন।

জাতিসংঘ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:–

★ জাতিসংঘের সদর দপ্তরের জমিদাতা হলেন:– জন ডি. রকফেলার
★ জাতিসংঘের সদর দপ্তরের স্থপতি হলেন:- ওয়ালেস কে হ্যারিস
★ জাতিসংঘের সদর দপ্তর অবস্থিত হল:– ইস্ট নদীর তীরে

★ জাতিসংঘের আফ্রিকান সদর দপ্তর হল:- কেনিয়ার নাইরোবিতে
★ অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায় জাতিসংঘের অফিস স্থাপিত হয় ১৯৮০ সালে।
★ নিউইয়র্কে অবস্থিত জাতিসংঘের সভাস্থালের নাম হল;- ফসিং মিডোস

★ জাতিসংঘের মোটো (motto নীতিবাক্য) হল:- এটা তোমার পৃথিবী (it is your world)
★ জাতিসংঘের লাইব্রেরির নাম হল:– দ্যাগ হ্যামারশোন্ড লাইব্রেরি
★ জাতিসংঘের সদর দপ্তরের ওয়েস্ট কোট গার্ডেনে শান্তি ঘন্টায় জাপানি ভাষায় লেখা রয়েছে :- “নিরঙ্কুশ” ( বিশ্বশান্তি দীর্ঘজীবী হোক)

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:–

১) সাধারণ পরিষদের অপর নাম হল:– আলোচনা পরিষদ
২) সাধারণ পরিষদের মূল কমিটির সংখ্যা হল ৭ টি
৩) জাতিসংঘের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুকে বলা হয় :– সাধারণ পরিষদ

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:-

১) নিরাপত্তা পরিষদের অপর নাম হল:– স্বস্তি পরিষদ
২) নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতির মেয়াত ১ মাস
৩) জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য পদ লাভের জন্য G-4 নামে সংঘ গঠন করে। ১) জাপান ২) জার্মানি ৩) ভারত ও ব্রাজিল

জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদ নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:–

১) অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদ কে বলা হয়:- UN family
২) অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদের অপর নাম :- উন্নয়ন পরিষদ
৩) অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদ প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য ছিল ১৮ টি তবে এখন ৫৪ টি

৪) প্রতি বছর অবসর নেয় ১৮টি সদস্য দেশ। এবং নতুন ১৮ টি আবার নির্বাচিত হয়।
৫) অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয় ৩ বছরের জন্য।
৬) Sustainable Development এর ধারণা অবতরণ করেছে :–অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদ
৭) অর্থনৈতিক ও সমাজিক পরিষদের “এজেন্ডা ২০৩০ হল:- Youth Talking Action.

★ জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক আদালত নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য:–

১) International Court of Justice এর পূর্বসূরি হল permanent court of International justice (PCIJ) এটি ১৯২২ সালে জাতিপুঞ্জের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল
২) আন্তর্জাতিক আদালত প্রথম মহিলা বিচার পতি হলেন :– রোজালিন হিগিন্স (ব্রিটেন)
৩) আন্তর্জাতিক আদালত বিচার কার্য শুরু করে ১৯৪৬ সালে।

জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এস ডি জি) সম্পর্কে :–

১) SDG এর পূর্ণরূপ হল:– Sustainable Development Goals(টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা)
২) SDG চূড়ান্তভাবে গৃহীত হয় ২৫-থেকে ২৭ সেপ্টেম্ব ২০১৫ সালে।
৩) SDG হয়েছে Millennium Development Goals এর মেয়াদ শেষ হবার কারণে।
৪) SDG এর লক্ষ হল:– ১৭ টি এছাড়া ৪৭ টি সূচক এবং ১৬৯ টি টার্গেট।

SDG এর প্রথম ৫ টি লক্যমাত্রাসমূহ হল:–

১) সকল প্রকার দারিদ্র্য দূরীকরণ
২) ক্ষুধা দূরীকরণ, খাদ্য নিরাপত্তা অর্জন, পুষ্টির উন্নয়ন এবং টেকসই কৃষি ত্বরান্বিতকরণ
৩) স্বাস্থ্যসম্মত জীবনমান নিশ্চিতকরণ
৪) ন্যায্যতাভিত্তিক মানসম্পন্ন শিক্ষার সুযোগ নিশ্চিতকরণ
৫) সকল নারী ও কন্যা শিশুর ক্ষমতায়ন এবং জেন্ডার সমতা অর্জন করা, ইত্যাদি আরো ১২ টি।

★ জাতিসংঘের ঘোষিত বর্ষ:–

১) আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বর্ষ (১৯৬৮ সালে)
২) বিশ্ব জনসংখ্যা বর্ষ ( ১৯৭৪ সালে)
৩) আন্তর্জাতিক আদিবাসী বর্ষ (১৯৯৩ সালে)
৪) আন্তর্জাতিক খরা ও মরুকরণ বর্ষ ( ২০০৬ সালে)

৫) আন্তর্জাতিক বন বর্ষ ( ২০১১)
৬) আন্তর্জাতিক সমবায় বর্ষ ( ২০১২)
৭) আন্তর্জাতিক পানি সহযোগিতা বর্ষ( ২০১৩)

★ জাতিসংঘের আয়োজিত সম্মেলন:–

১) স্টকহোম সম্মেলন( বিশ্ব পরিবেশ সম্মেলন) হয়েছে:— ১৯৭২ সালে সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে। এই সম্মেলনের মাধ্যমে ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালন করে।
২) শিশু বিষয়ক শীর্ষ সম্মেলন:– ১৯৯০ নিউইয়র্কে
৩) ৪র্থ বিশ্ব নারী সম্মেলন:– ১৯৯৫ সালে চীনে বেইজিং
৪) বর্ণবাদ ও বর্ণবৈষম্য বিরোধী সম্মেলন :–২০০১ সালে দক্ষিন আফ্রিকা

★ জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশন :–

১) জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনী গঠিত হয় :– ১৯৪৮ সালে।
২)১৯৪৮ সালে ফিলিস্তিনে UN truce Supervision Organization (UNTSO) মিশনে জাতিসংঘের প্রথম শান্তিরক্ষী বাহিনী পাঠায়
৩) আন্তর্জাতিক শান্তিরক্ষী দিবস হল:– ২৯ মে

৪) প্রথম নারী শান্তিরক্ষী নিযুক্ত হয় ২০০৭ সালে লাইবেরিয়ায়
৫) শান্তিরক্ষী নিহতদেন জন্য পদকের নাম হল:- দ্যাগ হ্যামারশোন্ড মেডেল
৬) প্রথম শান্তিরক্ষী নিহত ব্যক্তির নাম হল:– রেনে দ্য ল্যাব্রিয়ের (ফ্রান্স) ১৯৪৮ সালে (UNTSO) জাতিসংঘের প্রথম মিশনে।

৭) শান্তিরক্ষী মিশনে নিহত সৈন্যদের স্মরণে “পিস মনুমেন্ট” রয়েছে “ঢাকার শেরে বাংলা নগরে”
৮)শান্তিরক্ষী মিশনে সর্বাধিক ব্যয় বহনকারী দেশ হল:- যুক্তরাষ্ট্র
৯)শান্তিরক্ষী মিশনের বর্তমান প্রধান হল:– হার্ভে ল্যাডসোআস (ফ্রান্স)।

♦♦জাতিসংঘের রাষ্ট্র মনে রাখার টেকনিক♦♦

১)প্রস্তাবক দেশসমূহ :
যুযুচীরা
যু-যুক্তরাষ্ট্র
যু-যুক্তরাজ্য
চী-চীন
রা-রাশিয়া

২)ভেটো পাওয়ার প্রাপ্ত দেশসমূহ :
(যুযুফ্রাচীরা)
যু-যুক্তরাষ্ট্র
যু-যুক্তরাজ্য
ফ্রা-ফ্রান্স
চী-চীন
রা-রাশিয়া

৩)স্বাধীন কিন্তু সদস্য নয় এমন দেশগুলো:
তাইওয়ানের কফি খেতে ভ্যাট লাগে
তাই-তাইওয়ান
ক-কসোভো
ফি-ফিলিস্তিন
ভ্যাট-ভ্যাটিকান

৪) চাঁদা প্রদান করতে হয় না যাদের:
(নাটোকি) ভাব
না -নাউরু
টো-টোঙ্গা
কি-কিরিবাতি

জাতিসংঘের ৯ জন মহাসচিব এর নাম এবং দেশঃ

1. ট্রিগভেলী (1946 – 1952) – নরওয়ে।
2. দ্যাগ হ্যামারশোল্ড (1952 – 1961)- সুইডেন।
3. উ থান্ট (1962 – 1971)-মিয়ানমার।

4. কুর্ট ওয়াল্ডহেইম (1972 – 1981)-অস্ট্রিয়া।
5. জাভিয়ের পেরেজ দ্যা কুয়েলার(1982 -1991)পেরু
6. বুট্রোস বুট্রোস ঘালি (1992 – 1996)- মিশর।

7. কফি আনান (1997 – 2006)-ঘানা।
8. বান কি মুন (2007 – 2016)-দক্ষিণ কোরিয়া।
9. অ্যান্টনিও গুতেরেস(2017 – বর্তমান)- পর্তুগাল।

প্রশ্ন :জাতিসংঘের একমাত্র কোন মহাসচিব বিমান দুর্ঘটনায় মারা যায়?
উওরঃ দ্যাগ হ্যামারশোল্ড(1961).

৪০ টি বিভ্রান্তিকর প্রশ্নোত্তর একসাথে দিলাম।

-ICJ-আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের বিচারক কতজন? -১৫ জন(জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠান)
-ICC-আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের বিচারক-১৮ জন(স্বাধীন প্রতিষ্ঠান)
– জাতিসংঘের নামকরণ করেন- মার্কিন প্রেসিডেন্ট রুজভেল্ট

-জাতিপুঞ্জের প্রস্তাবক- উড্রো উইলসন
-জাতিপুঞ্জের উদ্যোক্তা হয়েও সদস্য ছিল না- যুক্তরাষ্ট্র
-জাতিসংঘ গঠনের প্রথম পদক্ষেপ- লন্ডন ঘোষণা
– জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠার প্রথম চুক্তি- আটলান্টিক সনদ

– জাতিসংঘ বিশ্ববিদ্যালয়- জাপানের টোকিওতে
– জাতিসংঘ শান্তি বিশ্ববিদ্যালয়- কোস্টারিকাতে
– জাতিসংঘ মূল সনদের লেখক- আর্কিবেন্ড ম্যাকলিস
– বাংলাদেশ জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে- একবার(১৯৮৬)

– বাংলাদেশ জাতিসংঘ নিরাপত্তা/ স্বস্তি পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে দুইবার(মার্চ-২০০০, জুন-২০০১)
– বাংলাদেশ জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য নির্বাচিত হয়- দুইবার(১৯৭৯-৮০, ২০০০-২০০১)
– জাতিসংঘের প্রথম অধিবেশন হয়- লণ্ডনের ওয়েস্টমিনিস্টার হলে
– জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের নিয়মিত অধিবেষন হয়- নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে, আটলান্টিক তীরবর্তী)

– স্বাধীন দেশ হয়েও জাতিসংঘের সদস্য নয়- ভ্যাটিকান এবং কসোভো
– জাতিসংঘের স্থায়ী পর্যবেক্ষক দেশ- ভ্যাটিকান এবং ফিলিস্তিন
-বিগ থ্রি বলা হয়- উইনস্টন চার্চিল, রুজভেল্ট, স্ট্যালিন এই তিন নেতাকে

– land of lord বলা হয়- ফিলিস্তিনকে
– Father of Apple tree- বলা হয়- কাজাকিস্তানকে
– গ্যাস উত্তোলনের জন্য সমগ্র বাংলাদেশকে ২৩ টি ব্লকে এবং সমুদ্র এলাকাকে ২৬ টি ব্লকে ভাগ করা হয়েছে
– আদমশুমারী হয়- পরীকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিবিএস(বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো) কর্তৃক

– বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের ক্যাডার সংখ্যা -২৬টি
– জেনারেল নিয়াজি আত্মসমর্পণের জন্য যোগাযোগ করেন- মার্কিন দূতাবাসে
– কনসার্ট ফর বাংলাদেশ এর আয়োজক দল- ফোবানা

– কনসার্ট ফর বাংলাদেশ এর ব্যান্ড দল- বিটলস
– মুক্তিযুদ্ধের সময় সোভিয়েত প্রধানমন্ত্রী ছিলেন- আলেক্সাই কোসিগিন, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট- রিচার্ড নিক্সন
– মুজিবনগর সরকারের সদস্য ছিলেন- ৬ জন

– মুজিবনরে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র জারি করা হয়-১০ এপ্রিল ১৯৭১
– মুজিবনগরে স্বাধীনতা ঘোষণা করা হয়-১০ এপ্রিল ১৯৭১
– বাংলাদেশকে প্রজাতন্ত্র বলে ঘোষণা করা হয়- ১৭ এপ্রিল, ১৯৭১

█▓▒জাতিসংঘ বিষয়ক ৫০টি প্রশ্নোত্তর ▒▓█

১. জাতিসংঘ গঠনের প্রধান উদ্যোক্তা কে?— মার্কিন প্রেসিডেন্ট এফডি রুজভেল্ট।

২. জাতিসংঘ এর নামকরণ করেন কে?— মার্কিন প্রেসিডেন্ট এফডি রুজভেল্ট।

৩. জাতিসংঘের নামকরণ করা হয় কবে?— ১ জানুয়ারি, ১৯৪২।

৪. জাতিসংঘের সচিবালয়ের প্রধান কে? — মহাসচিব।

৫. জাতিসংঘের সদর দপ্তর কোথায়? — নিউইয়র্ক,যুক্তরাষ্ট্র।

৬. জাতিসংঘের ইউরোপীয় র্কাযালয়— জেনেভা,সুইজারল্যান্ড।

৭. জাতিসংঘের সদর দপ্তরের জায়গাটি কে দান করেন— জন ডি রকফেলার জুনিয়র।

৮.জাতিসংঘের সদর দপ্তরের স্থপতি— ডব্লিউ হ্যারিসন।

৯.জাতিসংঘের সনদ স্বাক্ষরিত হয় কবে — ২৬জুন,১৯৪৫ সালে।

১০. জাতিসংঘ সনদ কার্যকরী হয় কবে থেকে— ২৪ অক্টোবর, ১৯৪৫।

১১.জাতিসংঘের সনদের রচয়িতা— আর্চিবাল্ড ম্যাকলেইশ (Archibald Macleish)।

১২.প্রতিবছর জাতিসংঘ দিবস পালিত হয়— ২৪শে অক্টোবর।

১৩. জাতিসংঘের প্রত্যেক সদস্য দেশ কোন পরিষদের সদস্য? — সাধারণ পরিষদের।

১৪. জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের প্রধানকে কি বলে — সভাপতি।

১৫. জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয় কোথায়? —লন্ডনের ওয়েস্ট মিনিস্টার হলে।

১৬. জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সভাপতি কত বছরের জন্য নির্বাচিত হয়—১ বছরের জন্য।

১৭. জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের নিয়মিত বার্ষিক অধিবেশন শুরু হয় — সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় মঙ্গলবার।

১৮. নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরাষ্ট্রের মোট সংখ্যা কত? — ১৫টি।

১৯. নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য রাষ্ট্র — ৫টি ( চীন, ফ্রান্স, রাশিয়া, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র)।

২০. নিরাপত্তা পরিষদের অধিবেশন কতবার জাতিসংঘের সদরদপ্তরের ছাড়া অন্যত্র অনুষ্ঠিত হয়— ২বার।

২১. নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য কত বছরের জন্য নির্বাচিত হয়— ২ বছরের জন্য।

২২. নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতি কত বছরের জন্য নির্বাচিত হয়— ১ মাসের জন্য।

২৩. নিরাপত্তা পরিষদের কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য কমপক্ষে কতটি সদস্য দেশের সম্মতির প্রয়োজন হয়— ৯টি(৫টি স্থায়ী সদস্য রাষ্ট্রসহ অতিরিক্ত ৪টি সদস্য রাষ্ট্রের)।

২৪. অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের অধিবেশন সাধারণত বছরে কয়বার বসে — বছরে দু’বার একমাসব্যাপী।

২৫.অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের সদস্য কত বছরের জন্য নির্বাচিত হয়— ৩ বছরের জন্য।

২৬. অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের সদস্য দেশ কয়টি— ৫৪টি।

২৭. প্রতিবছর কয়টি রাষ্ট্র তিন বছর মেয়াদে অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়— ১৮টি।

২৮. আন্তর্জাতিক আদালত প্রতিষ্ঠিত হয় — ২৪শে অক্টোবর,১৯৪৫ সালে।

২৯. আন্তর্জাতিক আদালতের বিচারকের সংখ্যা কত— ১৫ জন।

৩০. আন্তর্জাতিক আদালতের বিচারকের মেয়াদকাল— ৯ বছর।

৩১. জাতিসংঘের অফিসিয়াল ভাষা কয়টি ?— ৬টা (ইংরেজি, আরবি,ফরাসি, চীনা, রুশ ও স্প্যানিশ)।

৩২. জাতিসংঘের বাজেট কোন পরিষদে ঘোষিত হয়— সাধারণ পরিষদে।

৩৩. জাতিসংঘ সনদে প্রথমে কতটি দেশ স্বাৰর করে— ৫১টি দেশ।

৩৪. জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিব ছিলেন — ট্রাইগভে লাই (নরওয়ে) (১৯৪৬-১৯৫২)।

৩৫. জাতিসংঘ সচিবালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারিগণ তাদের কাজকর্মের ভাষা হিসেবে কোন ভাষা ব্যবহার করেন — ইংরেজি অথবা ফরাসি।

৩৬. জাতিসংঘের কোন মহাসচিব.শান্তিতে মরণোত্তর নোবেল পুরস্কার পান— দ্যাগ হ্যামারশোল্ড (১৯৬১ সালে)।

৩৭. আয়তনে জাতিসংঘের ছোট দেশ কোনটি— মোনাকো। (১.৯৫ বর্গ কি.মি.)।

৩৮.জনসংখ্যায় জাতিসংঘের ছোট দেশ কোনটি— ট্রুভ্যালু।

৩৯. কোন দেশ প্রথমে জাতিসংঘ সনদে স্বাক্ষর না করেও জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হয়— পোল্যান্ড।

৪০. জাতিসংঘ বিশ্ববিদ্যালয় কোথায় অবস্থিত— টোকিও (জাপান)।

৪১. জাতিসংঘের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা কে— মহাসচিব।

৪২. অছি পরিষদ কার অধীনে কাজ করে— সাধারণ পরিষদের।

৪৩. জাতিসংঘের কোন মহাসচিব বিমান দুর্ঘটনায় মারা যান — দ্যাগ হ্যামারশোল্ড (সুইডেন,১৯৬১)।

৪৪. জাতিসংঘের সদর দপ্তরটি কত একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত— ১৭ একর।

৪৫. জাতিসংঘের আয়ের মূল উৎস কী— সদস্য দেশসমূহের চাঁদা।

৪৬. জাতিসংঘের মহাসচিব কোন পরিষদের সুপারিশে নিযুক্ত হন—নিরাপত্তা পরিষদের।

৪৭. জাতিসংঘের একমাত্র মুসলমান মহাসচিব কে— কফি আনান (ঘানা) (৭ম)।

৪৮. উ থান্ট কোন দেশের অধিবাসী ছিলেন— মিয়ানমার।

৪৯. জাতিসংঘে দেয় বাংলাদেশের চাঁদার পরিমাণ কত— নিজস্ব বাজেটের ০.০১% অংশ।

৫০. বাংলাদেশ জাতিসংঘের কততম অধিবেশনে সদস্য পদ লাভ করে?— ২৯তম।

Edited by
PALASH SADHU
34th BCS CADRE

জাতিসংঘ নিয়ে সর্ববৃহৎ পোস্ট ছাড়া আরও পড়ুনঃ

ফেইসবুকে আপডেট পেতে আমাদের অফিসিয়াল পেইজ ও অফিসিয়াল গ্রুপের সাথে যুক্ত থাকুন। ইউটিউবে পড়াশুনার ভিডিও পেতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন। আমাদের সাইট থেকে কপি হয়না তাই পোস্টটি শেয়ার করে নিজের টাইমলাইনে রাখতে পারেন।